ভারতের প্রাকৃতিক পরিবেশ – ভারতের স্বাভাবিক উদ্ভিদ – ব্যাখ্যামূলক উত্তরভিত্তিক প্রশ্ন

ভূগোল হলো পৃথিবীর বিজ্ঞান। পৃথিবীর প্রাকৃতিক পরিবেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হলো উদ্ভিদ। উদ্ভিদ পৃথিবীর ভারসাম্য রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। ভারতের ভূমিরূপ, জলবায়ু, মাটি ইত্যাদির প্রভাবে এখানে বিভিন্ন ধরনের স্বাভাবিক উদ্ভিদ দেখা যায়।

এই অধ্যায়ে ভারতের স্বাভাবিক উদ্ভিদের প্রকারভেদ, বণ্টন ও বৈশিষ্ট্য আলোচনা করা হবে। এছাড়াও, ভারতের অরণ্য সংরক্ষণের গুরুত্ব ও উপায়গুলিও আলোচনা করা হবে।

ভারতের প্রাকৃতিক পরিবেশ – ভারতের স্বাভাবিক উদ্ভিদ – ব্যাখ্যামূলক উত্তরভিত্তিক প্রশ্ন

আপনি ভারতের স্থানীয় উদ্ভিদ সম্পর্কিত কিছু প্রশ্ন খুঁজে পেতে পারেন যার ব্যাখ্যামূলক উত্তর নীচে রয়েছে। এই প্রশ্নগুলি আপনাকে বিষয়ের আরও পুঙ্খানুপুঙ্খ বোঝার জন্য তৈরি করা হয়েছে এবং শেখার এবং পরীক্ষা উভয়ের জন্যই সহায়ক হবে। এই অনুসন্ধানগুলির উত্তর দেওয়ার মাধ্যমে, আপনি ভারতের স্থানীয় উদ্ভিদ সম্পর্কে আপনার বোঝার গভীরতা বাড়াবেন না বরং আপনার বিশ্লেষণাত্মক এবং সমস্যা সমাধানের ক্ষমতাও বিকাশ করবেন। সুতরাং, আপনারা সময় নিন এবং এই কৌতূহলী বিষয় সম্পর্কে আপনার জ্ঞানকে আরও এগিয়ে নিতে এই প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করুন।

হিমালয় পার্বত্য অঞ্চলে কী কী স্বাভাবিক উদ্ভিদ দেখা যায়?

হিমালয় পার্বত্য অঞ্চলে উচ্চতা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে উষ্ণতা ও বৃষ্টিপাতের তারতম্য হয় বলে পর্বতের পাদদেশ থেকে ক্রমশ ওপরের দিকে স্বাভাবিক উদ্ভিদের অনেক বৈচিত্র্য লক্ষ করা যায়। নীচে তা সারণি আকারে দেখানো হল।

স্বাভাবিক উদ্ভিদআঞ্চলিক বণ্টনপ্রধান প্রধান উদ্ভিদসৃষ্টির কারণ
চিরসবুজ অরণ্যপূর্ব হিমালয়ের পাদদেশ অঞ্চলে অর্থাৎ 1000 মি থেকে 2000 মি উচ্চতা পর্যন্ত বিস্তৃত অঞ্চল।শিশু, চাপলাস, গর্জন প্রভৃতি। উষ্ণতা ও বৃষ্টিপাতের আধিক্য (উষ্ণতা — 30 ° সে. – 35 ° সে., বৃষ্টিপাত — 200 সেমি-র অধিক) এই অরণ্য বিকাশে সহায়ক।
মিশ্র বনভূমিপূর্ব হিমালয়ের 1000 মি থেকে 2500 মি এবং পশ্চিম হিমালয়ের 500 মি থেকে 2000 মি উচ্চতা পর্যন্ত বিস্তৃত অঞ্চল।পপলার, ওক, ম্যাপল, বার্চ, লরেল প্রভৃতি। উচ্চতা বৃদ্ধির সাথে সাথে উষ্ণতা হ্রাসের কারণে নাতিশীতোষ্ণ পর্ণমোচী এবং নাতিশীতোষ্ণ চিরসবুজ—উভয়প্রকার বৃক্ষের একত্র সমাবেশ দেখা যায়।
সরলবর্গীয় বনভূমিপূর্ব হিমালয়ের 2500 মি থেকে 4000 মি এবং পশ্চিম হিমালয়ের 2000 মি থেকে 3000 মি উচ্চতা পর্যন্ত বিস্তৃত অঞ্চল।পাইন, ফার, স্প্রুস, লরেল প্রভৃতি। প্রবল তুষারপাতের হাত থেকে আত্মরক্ষার তাগিদে এখানে বিশেষ ধরনের অভিযোজনগত (শঙ্কু আকৃতির বৃক্ষ)বৈশিষ্ট্য সমন্বিত উদ্ভিদ বিকাশ লাভ করেছে।
আল্পীয় উদ্ভিদপশ্চিম হিমালয়ের সরলবর্গীয় বনভূমি অঞ্চলের আরও ওপরে প্রায় 4500 মি উচ্চতা পর্যন্ত বিস্তৃত অঞ্চল।জুনিপার, রডোডেনড্রন, লার্চ, ভুর্জ, প্রভৃতি নানা-রকমের তৃণ ও গুল্ম। বছরের কিছুটা সময় মাটি বরফাবৃত থাকার পর বসন্তকালে বরফের গলনে মৃদু শীতল আবহাওয়ায় এই ধরনের উদ্ভিদ বিকাশ লাভ করেছে।

ভারতের প্রাকৃতিক পরিবেশ – ভারতের স্বাভাবিক উদ্ভিদ – রচনাধর্মী উত্তরভিত্তিক প্রশ্ন

ভারতের স্বাভাবিক উদ্ভিদের শ্রেণিবিভাগ করো।

ভারতের স্বাভাবিক উদ্ভিদের শ্রেণিবিভাগ —

স্বাভাবিক উদ্ভিদআঞ্চলিক বণ্টনবৈশিষ্ট্যব্যবহার
ক্রান্তীয় চিরহরিৎ অরণ্যআন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ, পশ্চিমঘাট পর্বতের পশ্চিমঢাল, অরুণাচল প্রদেশ, নাগাল্যান্ড, মণিপুর, মিজোরাম, পশ্চিমবঙ্গের ডুয়ার্স প্রভৃতি অঞ্চলে।1. বাতাসে সারাবছর আর্দ্রতা বেশি থাকে বলে গাছের পাতা একসাথে ঝরে যায় না। তাই গাছগুলি চিরসবুজ হয়। 2. গাছগুলি খুব কাছাকাছি গড়ে ওঠে। 3. অরণ্যের ভূমি সারাবছর স্যাঁতসেঁতে থাকে। 4. গাছগুলি ঘন সন্নিবিষ্ট ভাবে থাকে বলে সূর্যের আলো অনেকসময় মাটি পর্যন্ত পৌঁছায় না। 5. গাছগুলি খুব লম্বা আর ডালপালা যুক্ত হয়। 6. গাছের গুঁড়ি খুব শক্ত এবং পাতাগুলি বড়ো হয়।
প্রধান উদ্ভিদ – শিশু, গর্জন, তুন, পুন, গোলাপকাঠ, বিশপকাঠ, রবার, পাম প্রভৃতি।
এই অরণ্যের কাঠ শিল্পে খুব বেশি ব্যবহৃত হয় না। তবে বাড়ি নির্মাণ, রেলের কামরা, স্লিপার ও অন্যান্য কাজে ব্যবহার করা হয়।
ক্রান্তীয় পর্ণমোচী অরণ্যভারতের সবচেয়ে বেশি স্থান জুড়ে রয়েছে এই প্রকৃতির অরণ্য। মোট অরণ্যের 27 ভাগ আর্দ্র| পর্ণমোচী এবং 29 ভাগ রয়েছে শুষ্ক পর্ণমোচী অরণ্য। অসম সমভূমি, পশ্চিমবঙ্গের সমগ্র সমভূমি ও মালভূমি অঞ্চল, ছোটোনাগপুর মালভূমি, ওড়িশা, হিমালয়ের পাদদেশে, বিহার, পশ্চিমঘাট পর্বতের পূর্বঢাল, উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড়, মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, কর্ণাটক, অন্ধ্রপ্রদেশের বিভিন্ন স্থানে এই বনভূমি রয়েছে।1. বসন্তকালে গাছের পাতা সব একসাথে ঝরে পড়ে। তাই এর অরণ্যের নাম পর্ণমোচী অরণ্য 2. কোনো কোনো অঞ্চলে একই প্রজাতির গাছ একসাথে অবস্থান করে। 3. উদ্ভিদগুলির ঘনত্ব কম। 4. গাছের কাঠ খুব শক্ত এবং মূল্যবান। 5. গাছগুলি বহুডালপালা যুক্ত, 6. বৃক্ষগুলিতে বর্ষবলয় পরিষ্কার করে বোঝা যায়। 7. এই অরণ্যে কাঠ সংগ্রহ করা সবচেয়ে সুবিধাজনক।
প্রধান উদ্ভিদ – শাল, সেগুন, মহুয়া, শিরিষ, আম, জাম, কাঁঠাল, বট, পলাশ প্রভৃতি।
এই বনভূমির কাঠের ব্যবহার সবচেয়ে বেশি। বাড়ি-ঘরের জানলা, দরজা, নৌকা, জাহাজ, সেতু নির্মাণ এবং জ্বালানি কাঠ হিসেবে এর ব্যবহার খুব বেশি।
ক্রান্তীয় মরু উদ্ভিদরাজস্থান, কচ্ছ ও কাথিয়াবাড় উপদ্বীপ, দাক্ষিণাত্য মালভূমির বৃষ্টিচ্ছায় অঞ্চলে মরু এবং মরুপ্রায় উদ্ভিদ জন্মায়।1. মরু অরণ্য কখনোই ঘন বা নিবিড় হয় না। ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকে। 2. জলের অভাবে গাছের পাতাগুলি কাঁটায় রূপান্তরিত হয়। করা হয়। 3. গাছের শিকড় খুব লম্বা হয়। 4. উদ্ভিদের পাতা সরু এবং ছুঁচোলো হয়। 5. গাছগুলি ঝোপঝাড় যুক্ত হয়। 6. উদ্ভিদ দেহে জল ধরে রাখার জন্য কোনো কোনো গাছের কান্ড ও পাতায় শাঁস থাকে।
প্রধান উদ্ভিদ – ক্যাকটাস, ফণীমনসা, বাবলা, খেজুর, খয়ের প্রভৃতি।
এখানকার গাছ কেবল জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করা হয়। 
পার্বত্য উদ্ভিদভারতের পার্বত্য উদ্ভিদ দুই ধরনের—
A. দক্ষিণ ও মধ্য ভারতের পার্বত্য উদ্ভিদ – পশ্চিমঘাট, পূর্বঘাট, নীলগিরি, বিন্ধ্য, সাতপুরা, মহাদেব, মহাকাল প্রভৃতি পর্বতে এই ধরনের উদ্ভিদ দেখা যায়।
1000-1500 মিটার উচ্চতায় চিরহরিৎ বনভূমি রয়েছে। এর ওপরে রয়েছে আর্দ্র নাতিশীতোষ্ণ বনভূমি। 
উদ্ভিদসমূহ – ম্যাগনোলিয়া, লরেন্স, এলম, সিঙ্কোনা প্রভৃতি। 
বাড়িঘর নির্মাণ, ভেষজ ওষুধ তৈরি, জ্বালানি কাঠ এবং আসবাবপত্র তৈরিতে ব্যবহৃত হয়।

যে কেউ বিষয়টি অধ্যয়ন করছেন বা পরীক্ষার জন্য প্রস্তুত হচ্ছেন তারা এখানে উপস্থাপিত ভারতের প্রাকৃতিক উদ্ভিদ সম্পর্কিত ব্যাখ্যামূলক উত্তর-ভিত্তিক প্রশ্নগুলি থেকে উপকৃত হবেন। জীববৈচিত্র্য, বন্টন, অর্থনৈতিক তাৎপর্য এবং সংরক্ষণ সহ এই প্রশ্নগুলির উত্তর দিয়ে কেউ ভারতের প্রাকৃতিক উদ্ভিদের অসংখ্য দিকগুলির একটি পরিষ্কার উপলব্ধি অর্জন করতে পারে। এই প্রশ্নগুলির উত্তরগুলি শিক্ষার্থীদের তাদের শক্তি এবং জ্ঞানের ফাঁকের ক্ষেত্রগুলি সনাক্ত করতে সহায়তা করতে পারে, যাতে তারা এই ক্ষেত্রগুলিকে শক্তিশালী করার জন্য তাদের প্রচেষ্টাকে মনোনিবেশ করতে দেয়। শিক্ষার্থীরা ব্যাখ্যামূলক উত্তর-ভিত্তিক প্রশ্নের অনুশীলন করে তাদের সমালোচনামূলক চিন্তাভাবনা এবং সমস্যা সমাধানের ক্ষমতা বাড়াতে পারে, যা পরীক্ষায় এবং তার পরেও সাফল্যের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। সামগ্রিকভাবে, এই প্রশ্নগুলি ভারতের স্থানীয় উদ্ভিদ সম্পর্কে তাদের জ্ঞান অগ্রসর করতে এবং পরীক্ষায় সাফল্য অর্জন করতে ইচ্ছুক যে কোনও ব্যক্তির জন্য একটি দুর্দান্ত সংস্থান।

ভারতের স্বাভাবিক উদ্ভিদ দেশের প্রাকৃতিক সম্পদ। এই উদ্ভিদগুলি দেশের পরিবেশ ও অর্থনীতির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই ভারতের স্বাভাবিক উদ্ভিদ সংরক্ষণ করা অত্যন্ত জরুরি।

Rate this post


Join WhatsApp Channel For Free Study Meterial Join Now
Join Telegram Channel Free Study Meterial Join Now

মন্তব্য করুন