বিভিন্ন গতিতে নদীর কার্যের তুলনামূলক সংক্ষিপ্ত বিবরণ দাও

নদী জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ এবং পৃথিবীর বিভিন্ন অঞ্চলে সবচেয়ে প্রভাবশালী জীবমানুষের জীবনের একটি অংশ। নদী বিভিন্ন কারণে বিভিন্ন গতিতে প্রবাহ করে থাকে এবং তার প্রভাব বিভিন্ন উপকারিতা দেয়।

বিভিন্ন গতিতে নদীর কার্যের তুলনামূলক সংক্ষিপ্ত বিবরণ, একটি উচ্চস্বরে আলাপটির মাধ্যমে প্রদান করা হয়। নদীর জীবনকে সম্পর্কিত করে এই আলাপে বিভিন্ন গতির প্রশংসা এবং তার গুরুত্ব ব্যক্ত করা হবে। সাধারণত, একটি নদী অনেকগুলি গতিতে প্রবাহিত হয়, প্রধানতঃ মাঝে মাঝে স্থিতিশীল হয়, হালকা প্রবাহ থাকে এবং সময় একটি নদী কিছুটা গুড়িমান পেতে পারে।

প্রথমেই, অবধির দিক থেকে নদীর স্বাভাবিক গতিতে বর্ণনা করা যায়। সাধারণত, নদী জল নিয়ে চলে যায় এবং সামান্য প্রবাহ থাকে যা নদীর অবধি দিকে সরবরাহ করে। এটি প্রবাহ এবং অবধি দিকের মধ্যে একটি সম্পর্ক সৃষ্টি করে, যা নদীর কাছাকাছি জলের স্তরের সমতুল্য হওয়া মাধ্যমে রক্ষা করে। নদীর প্রবাহ গতি নির্ভর করে।

বিভিন্ন গতিতে নদীর কার্যে

উপর্যুক্ত কারণে, নদীর কার্য নিম্নলিখিত অবস্থার মধ্যে বিভিন্ন গতিতে পরিবর্তিত হতে পারে –

বিভিন্ন গতিতে নদীর কার্যের তুলনা – গতিপথের বিভিন্ন অংশে নদীর কার্যের মধ্যে যথেষ্ট বৈচিত্র্য লক্ষ করা যায়, যেমন –

উৎস থেকে মোহনা পর্যন্ত নদীর উপত্যকার বৈশিষ্ট্য
তুলনার বিষয়উচ্চগতিমধ্যগতিনিম্নগতি
এলাকাপার্বত্য অঞ্চলে যেখানে নদীর উৎপত্তি হয় সেখান থেকে সমভূমিতে নেমে আসার আগে পর্যন্ত নদীর পার্বত্য প্রবাহ বা উচ্চগতি।পার্বত্য অঞ্চল ছেড়ে নদী যখন সমভূমির ওপর দিয়ে বয়ে যায়, তখন নদীর সেই প্রবাহ পথটি হল সমভূমি প্রবাহ বা মধ্যগতি।নদী প্রবাহপথে যখন সাগরের নিকটে এসে পড়ে, অর্থাৎ মোহানার কাছাকাছি অঞ্চলে নদীর প্রবাহের নাম বদ্বীপ প্রবাহ বা নিম্নগতি।
গতিবেগভূমির ঢাল খুব বেশি থাকে বলে নদী প্রবলবেগে নীচের দিকে বয়ে চলে, অর্থাৎ এই অংশে নদী খরস্রোতা।ভূমির ঢাল অপেক্ষাকৃত কম থাকে বলে স্রোতের বেগও কমে যায়। ভূমির ঢাল খুব কমে যায় বলে নদী অত্যন্ত ধীরগতিতে এগোয়।
কাজপ্রবল স্রোতের জন্য নদী এই অংশে প্রধানত ক্ষয়কার্য করে। পার্শ্বক্ষয়ের তুলনায় নিম্নক্ষয় খুব বেশি হয়। এ ছাড়া, এই অংশে নদী ক্ষয়জাত বড়ো বড়ো শিলাখন্ড বহন করে নিয়ে যায়।স্রোতের বেগ অপেক্ষাকৃত কম থাকে বলে মধ্যগতিতে নদীর প্রধান কাজ হয় বহন এবং বাহিত পদার্থের কিছু পরিমাণ অবক্ষেপণ। এই অংশে নদী কাজ ছোটো ছোটো শিলাখন্ড ও পলি বহন করে নিয়ে যায় এবং কিছু পরিমাণ সঞ্চয়। পার্শ্বক্ষয়ও করে।স্রোতের বেগ খুব সামান্য থাকে বলে নিম্নগতিতে নদীর ক্ষয়কার্যের ক্ষমতা প্রায় থাকে না এবং তাই তার প্রধান হয় বাহিত অতিসুক্ষ্ম কণাসমূহের নদীখাতে অবক্ষেপণ বা সঞ্চয়।
খাতের আকৃতিনিম্নক্ষয় খুব বেশি হয় বলে নদীখাত খুব সংকীর্ণ ও গভীর হয়ে ইংরেজি অক্ষর ‘I’ এবং ‘V’-আকৃতির হয়।নিম্নক্ষয়ের তুলনায় পার্শ্বক্ষয় বেশি হয় বলে কর্ম গভীরতাবিশিষ্ট চওড়া নদীখাতের সৃষ্টি হয়। ক্ষয়কার্য বন্ধ হয়ে যাওয়ায় এবং অবক্ষেপণ প্রাধান্য পাওয়ায় নদীখাত খুব প্রশস্ত এবং প্রকৃতই অগভীর হয়।
সৃষ্ট ভূমিরূপমন্থকূপ বা পটহোল, জলপ্রপাত, খরস্রোত, অন্তর্বদ্ধ শৈলশিরা প্রভৃতির সৃষ্টি হয়।পলল ব্যজনী বা ত্রিকোণ পললভূমি, নদীচর, প্লাবনভূমি, স্বাভাবিক বাঁধ, অশ্বক্ষুরাকৃতি হ্রদ প্রভৃতি গঠিত হয়। বিস্তৃত প্লাবনভূমি, উঁচু স্বাভাবিক বাঁধ, বৃহদাকার অশ্বক্ষুরাকৃতি হ্রদ, অসংখ্য বদ্বীপ প্রভৃতি গড়ে ওঠে।

উপরের আলাপের মাধ্যমে বোঝানো হয়েছে যে নদী বিভিন্ন গতিতে প্রবাহিত হয় এবং তার গতির প্রশংসা এবং গুরুত্ব ব্যক্ত করা হয়েছে। নদীর কার্যের তুলনামূলক সংক্ষিপ্ত বিবরণ থেকে বোঝা যায় যে নদী জীবনের গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ এবং সামগ্রিকভাবে প্রকৃতির নিয়ম এবং সমন্বয়ের প্রতীক। এটি মানুষের জীবনের সাথেও একটি সম্পর্ক রাখে, কেননা নদী জমিদারি সম্পদ পোষণ করে, জল সরবরাহ করে এবং জীবন সম্প্রসারণ করে। তাই, বিভিন্ন গতিতে নদীর কার্যের প্রশংসা এবং তার সম্পর্ক বোঝানো গুরুত্বপূর্ণ। নদীর গতির পরিবর্তনগুলি প্রকৃতির নিয়মের একটি পরিচিতি এবং সমগ্র প্রকৃতির সংসারে একটি অবিচ্ছিন্ন অংশ। পরিবেশ সংরক্ষণের দিক থেকেও নদীর গতির প্রশংসা অতুলনীয়।

Rate this post


Join WhatsApp Channel For Free Study Meterial Join Now
Join Telegram Channel Free Study Meterial Join Now

মন্তব্য করুন