নবম শ্রেণী – ইতিহাস – বিপ্লবী আদর্শ, নেপোলিয়নীয় সাম্রাজ্য ও জাতীয়তাবাদ – সংক্ষিপ্ত উত্তরভিত্তিক প্রশ্ন

ফরাসি বিপ্লব (১৭৮৯-১৭৯৯) ইউরোপের ইতিহাসে একটি যুগান্তকারী ঘটনা। এই বিপ্লবের ফলে ফ্রান্সে একটি প্রজাতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয় এবং বিপ্লবী আদর্শগুলি ছড়িয়ে পড়ে ইউরোপের অন্যান্য দেশেও।

Table of Contents

নেপোলিয়ন বোনাপার্ট (১৭৬৯-১৮২১) ছিলেন ফরাসি বিপ্লবের একজন সেনাপতি। তিনি ফরাসি সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে ইউরোপের বেশিরভাগ অংশ জয় করে নেন এবং একটি সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা করেন। নেপোলিয়নের সাম্রাজ্য বিপ্লবী আদর্শগুলিকে ছড়িয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

বিপ্লবী আদর্শ, নেপোলিয়নীয় সাম্রাজ্য ও জাতীয়তাবাদ – সংক্ষিপ্ত উত্তরভিত্তিক প্রশ্ননবম

ডিরেক্টরির শাসন বলতে কী বোঝো?

১৭৯৫ খ্রিস্টাব্দের সংবিধান অনুসারে ফ্রান্সের শাসনভার ৫ জন ডিরেক্টর বা ব্যক্তির এক কমিটির হাতে তুলে দেওয়া হয়। এই শাসন ডিরেক্টরির শাসন (১৭৯৫-১৭৯৯ খ্রি.) নামে পরিচিত। এই শাসনব্যবস্থা ছিল অত্যন্ত অদক্ষ ও দুর্নীতিগ্রস্ত। ডিরেক্টরদের শাসনকালে ফ্রান্সের শাসনব্যবস্থা ভেঙে পড়েছিল।

নেপোলিয়ন কীভাবে ডিরেক্টরি শাসনের অবসান ঘটান?

১৭৯৯ খ্রিস্টাব্দের ৯ নভেম্বর সেন্ট ক্লাওডে অধিবেশন চলাকালীন নেপোলিয়ন সৈন্যসহ সেখানে প্রবেশ করেন। অধিকাংশ সদস্যদের বিতাড়িত করে তিনি ডিরেক্টরি শাসনের অবসান ঘটান।

অষ্টম বর্ষের সংবিধান কী? এই সংবিধান দ্বারা প্রবর্তিত শাসনের নাম কী?

১৭৯৯ খ্রিস্টাব্দের ৯ নভেম্বর (প্রজাতন্ত্রী বর্ষপঞ্জি অনুসারে ১৮ ব্রুমেয়ার) নেপোলিয়ন ডিরেক্টরি শাসনের অবসান ঘটান। ১৭৯৯ খ্রিস্টাব্দের ২৪ ডিসেম্বর আবে সিয়েসের নেতৃত্বে যে সংবিধান প্রবর্তিত হয়, তাকে অষ্টম বর্ষের সংবিধান বলা হয়। এই সংবিধান দ্বারা প্রবর্তিত হয় কনস্যুলেট-এর শাসন।

কনস্যুলেটের শাসন বলতে কী বোঝায়?

নেপোলিয়ন ১৭৯৯ খ্রিস্টাব্দের ৯ নভেম্বর ফ্রান্সে ডিরেক্টরি শাসনের অবসান ঘটিয়ে কনস্যুলেটের শাসন প্রবর্তন করেন। এই শাসনব্যবস্থায় তিনজন কনসালের হাতে শাসনক্ষমতা অর্পিত হয়। এতে নেপোলিয়ন ছিলেন সর্বশক্তিমান প্রথম কনসাল। নেপোলিয়ন প্রবর্তিত এই শাসনব্যবস্থাকে কনস্যুলেটের শাসন বলা হয়।

১৮ ব্রুমেয়ার ঘটনা বলতে কী বোঝায়?

নেপোলিয়ন ১৭৯৯ খ্রিস্টাব্দের ৯ নভেম্বর ফ্রান্সে ডিরেক্টরি শাসনের অবসান ঘটিয়ে কনস্যুলেট নামে এক নতুন শাসনব্যবস্থা প্রবর্তন করেন। ফ্রান্সের বিপ্লবী ক্যালেন্ডার অনুসারে এই দিনটি ছিল ১৮ ব্রুমেয়ার। তাই এই ঘটনাকে ১৮ ব্রুমেয়ার ঘটনা বলা হয়। এই সময় থেকে ফ্রান্সে নেপোলিয়নের যুগ শুরু হয়।

নেপোলিয়নের যুগ বলতে কী বোঝায়?

নেপোলিয়ন বোনাপার্ট ১৭৯৯ খ্রিস্টাব্দের ৯ নভেম্বর ডিরেক্টরি শাসনের অবসান ঘটিয়ে ফ্রান্সের শাসনক্ষমতা দখল করেন। এরপর তিনি ফ্রান্সে কনস্যুলেট (Consulate) নামে এক নতুন শাসনব্যবস্থা প্রবর্তন করেন এবং সর্বশক্তিমান প্রথম কনসাল রূপে পরিচিত হন। এইসময় থেকে ১৮১৪ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত নেপোলিয়ন পূর্ণ কর্তৃত্বের সঙ্গে ফ্রান্স শাসন করেন এবং সমগ্র ইউরোপে তাঁর আধিপত্য বিস্তার করেন। তাই ১৭৯৯ খ্রিস্টাব্দ থেকে ১৮১৪ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত সময়কালকে ফ্রান্স তথা ইউরোপের ইতিহাসে নেপোলিয়নের যুগ (Age of Napoleon) বলা হয়।

প্রিফেক্ট ও সাব-প্রিফেক্ট বলতে কী বোঝো? অথবা, নেপোলিয়ন কীভাবে প্রাদেশিক শাসনের বিভাজন ঘটান?

প্রথম কনসাল হিসেবে নেপোলিয়ন সংবিধান সভার (১৭৮৯-৯১ খ্রিস্টাব্দ) আমলে প্রতিষ্ঠিত ৮৩টি প্রদেশকে অব্যাহত রেখে প্রতিটি প্রদেশে একজন করে নিজ মনোনীত প্রার্থী নিয়োগ করেন, যাদের প্রিফেক্ট বলা হত। আবার প্রতিটি প্রদেশকে ৫৪৭টি জেলা বা ক্যান্টনে বিভক্ত করে সেখানে নেপোলিয়ন যাদেরকে নিয়োগ করেন, তাদের বলা হত সাব-প্রিফেক্ট।

নেপোলিয়ন কবে ফ্রান্সের প্রথম কনসাল, যাবজ্জীবন কনসাল এবং ফ্রান্সের সম্রাট নিযুক্ত হন?

১৭৯৯ খ্রিস্টাব্দে ২৪ ডিসেম্বর নেপোলিয়ন প্রথম কনসাল এবং ১৮০২ খ্রিস্টাব্দে আগস্ট মাসে তিনি সারা জীবনের জন্য কনসাল পদে নিযুক্ত হন।

১৮০৪ খ্রিস্টাব্দের ১৮ মে তিনি সিনেট দ্বারা সম্রাট-এর মর্যাদায় উন্নীত হন। ওই বছরই ২ ডিসেম্বর পোপ সপ্তম পায়াস কর্তৃক নোটরডাম গির্জায় তাঁর অভিষেকক্রিয়া সম্পন্ন হয়।

মন্টজেলার্ড কে?

নেপোলিয়ন বোনাপার্টের বিশ্বস্ত সেনাপতি ছিলেন মন্টজেলার্ড। ১৮০৫ খ্রিস্টাব্দের এক রিপোর্টে তিনি অর্থনৈতিক অবরোধের দ্বারা ইংল্যান্ডের শক্তি ধ্বংস করার প্রস্তাব দেন। মন্টজেলার্ড রিপোর্ট-কে তাই মহাদেশীয় অবরোধ প্রথার খসড়া বলা হয়।

সার্ডিনিয়াকে পরাস্ত করে নেপোলিয়ন কোন্ কোন্ অঞ্চল অধিকার করেন?

নেপোলিয়ন এক মাসেরও কম সময়ে ৫টি যুদ্ধে সার্ডিনিয়াকে পরাস্ত করেন। এর ফলে তিনি স্যাভয় ও নিস অঞ্চলের উপর ফ্রান্সের কর্তৃত্ব স্থাপন করেছিলেন।

ক্যাম্পো ফর্মিও-র সন্ধি কত খ্রিস্টাব্দে, কাদের মধ্যে স্বাক্ষরিত হয়েছিল?

১৭৯৭ খ্রিস্টাব্দের ১৭ অক্টোবর ক্যাম্পো ফর্মিও-র সন্ধি স্বাক্ষরিত হয়েছিল।

ফ্রান্সের নেপোলিয়ন ও অস্ট্রিয়ার সম্রাট দ্বিতীয় ফ্রান্সিসের মধ্যে ক্যাম্পো ফর্মিও-র সন্ধি স্বাক্ষরিত হয়েছিল।

ক্যাম্পো ফর্মিও-র সন্ধির শর্ত কী ছিল?

১৭৯৭ খ্রিস্টাব্দে নেপোলিয়ন ও অস্ট্রিয়ার সম্রাট দ্বিতীয় ফ্রান্সিসের মধ্যে ক্যাম্পো ফর্মিও-র সন্ধি স্বাক্ষরিত হয়।
সন্ধির শর্ত – ক্যাম্পো ফর্মিও-র সন্ধির শর্ত অনুযায়ী —

  • অস্ট্রিয়া ফ্রান্সকে লোম্বার্ডি, জেনোয়া এবং নেদারল্যান্ডের কিছু অংশ ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়।
  • বেলজিয়াম প্রদেশের উপর ফ্রান্সের কর্তৃত্ব অস্ট্রিয়া মেনে নেয়।

নেপোলিয়নের মিশর অভিযান সম্পর্কে কী জান?

ইংল্যান্ডের শ্রেষ্ঠ উপনিবেশ ভারত থেকে ইংল্যান্ডে পণ্যদ্রব্য আমদানি বন্ধ করার উদ্দেশ্যে নেপোলিয়ন মিশর থেকে ভারত আক্রমণের উদ্যোগ নেন। এই কারণে ১৭৯৮ খ্রিস্টাব্দে তিনি মিশর আক্রমণ করেন এবং পিরামিডের যুদ্ধে মামেলুকদের বিরুদ্ধে জয়ী হন। কিন্তু নীলনদের যুদ্ধে ব্রিটিশ সেনাপতি নেলসনের বাহিনীর কাছে নেপোলিয়নের বাহিনী পর্যুদস্ত হয়। পরিকল্পনা ব্যর্থ হওয়ায় হতাশ নেপোলিয়ন মিশর অভিযান ত্যাগ করে দেশে ফিরে আসেন

নেপোলিয়ন কেন মিশর অভিযান করেছিলেন? মিশর অভিযানের ফল কী হয়েছিল?

উদ্দেশ্য – ফ্রান্সে ডিরেক্টরির শাসনকালে ১৭৯৮ খ্রিস্টাব্দে নেপোলিয়ন মিশর অভিযান করেন। তাঁর মিশর অভিযানের উদ্দেশ্য ছিল –

  • মিশর থেকে ফ্রান্সের প্রতিদ্বন্দ্বী দেশ ইংল্যান্ডকে বিতাড়িত করা।
  • মিশরে ফ্রান্সের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা করা।

ফলাফল – মিশর অভিযানে পিরামিডের যুদ্ধে (১৭৯৮ খ্রি.) নেপোলিয়ন জয়লাভ করেন। কিন্তু নীলনদের যুদ্ধে (আগস্ট, ১৭৯৮ খ্রি.) তিনি ইংরেজ সেনাপতি নেলসনের কাছে পরাজিত হন এবং ফ্রান্সে ফিরে আসেন।

কত খ্রিস্টাব্দে নেপোলিয়ন নিজেকে সম্রাট বলে ঘোষণা করেন? কোন্ পোপ নেপোলিয়নকে সম্রাট পদে অভিষিক্ত করেন?

১৮০৪ খ্রিস্টাব্দের ২ ডিসেম্বর নেপোলিয়ন নিজেকে সম্রাট বলে ঘোষণা করেন।

পোপ সপ্তম পায়াস প্যারিসের নোটরডাম চার্চে উপস্থিত থেকে নেপোলিয়নকে সম্রাট পদে অভিষিক্ত করেন। নেপোলিয়ন ফরাসি জাতির সম্রাট উপাধি ধারণ করেন।

প্রথমে নেপোলিয়ন আইনসভার কয়টি কক্ষ প্রবর্তন করেন? সেগুলির নাম কী?

প্রথমে নেপোলিয়ন কনস্যুলেটের সংবিধান দ্বারা আইনসভাকে চারটি কক্ষে বিভক্ত করেছিলেন। এই কক্ষগুলি ছিল –

  • কাউন্সিল অফ স্টেট স্থির হয় ২৫ জন সদস্যবিশিষ্ট এই সভা আইনের প্রস্তাব রচনা করবে
  • ট্রাইবুনেট ১০০ জন সদস্যবিশিষ্ট ট্রাইবুনেট সেই প্রস্তাব সম্পর্কে আলোচনা করবে, কিন্তু ভোট দিতে পারবে না
  • লেজিসলেটিভ বডি ৩০০ জন সদস্যবিশিষ্ট এই সভা কোনো প্রকার আলোচনা ছাড়াই ভোট মারফত প্রস্তাব গ্রহণ করতে পারবে
  • সিনেট ৮৫ জন সদস্যবিশিষ্ট এই সভা প্রস্তাবগুলির চূড়ান্ত অনুমোদন বা বর্জন করতে পারবে।

নেপোলিয়নের দুটি গুরুত্বপূর্ণ সংস্কারের নাম লেখো।

নেপোলিয়নের উল্লেখযোগ্য দুটি সংস্কার হল –

  • ধর্মীয় বিবাদ মেটানোর জন্য ১৮০১ খ্রিস্টাব্দে পোপ সপ্তম পায়াসের সঙ্গে কনকর্ডাট চুক্তি সম্পাদন।
  • কোড নেপোলিয়ন প্রণয়ন করে আইনের চোখে সকলকে সমতা প্রদান।

কনকর্ডাট বলতে কী বোঝায়?

১৭৯১ খ্রিস্টাব্দে সিভিল কনস্টিটিউশন অফ দ্য ক্লার্জি নামক আইন দ্বারা পোপের ক্ষমতা বিনষ্ট করা হয় এবং ফ্রান্সের চার্চগুলির জাতীয়করণ করা হয়। এর ফলে পোপের সঙ্গে ফরাসি সরকারের বিরোধ বাধে।

১৮০১ খ্রিস্টাব্দে নেপোলিয়ন চার্চের জাতীয়করণ নীতির সঙ্গে পোপের দাবির সমতা রক্ষা করে যে মীমাংসা সূত্র বা সমাধান সূত্র রচনা করেন, তা কনকর্ডাট নামে পরিচিত।

কনকর্ডাট-এ কী বলা হয়?

১৮০১ খ্রিস্টাব্দে নেপোলিয়ন ও পোপ সপ্তম পায়াস দ্বারা যৌথভাবে প্রবর্তিত কনকর্ডাটে বলা হয় —

  • ফ্রান্সে চার্চের যাজকগণ সরকার দ্বারা নিযুক্ত হওয়ার পর পোপ সেই নিয়োগ অনুমোদন করবেন।
  • প্রত্যেক যাজক ফরাসি সরকারের কাছ থেকে নির্দিষ্ট বেতন পাবেন।
  • ফ্রান্সে ক্যাথলিক ধর্ম চালু থাকবে তবে তার উপর ফরাসি সরকারের নিয়ন্ত্রণ জারি করা হবে।
  • বিপ্লবী আমলে ফরাসি সরকার রাষ্ট্রের যে সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করেছিল পোপ তা স্বীকার করে নেবেন।

অর্গানিক শর্তাবলি কী?

নেপোলিয়ন পোপ সপ্তম পায়াস-এর সঙ্গে ধর্মমীমাংসা চুক্তি (১৮০১ খ্রি.) স্বাক্ষরের পর কতকগুলি আইন প্রচলন করেন, যা অর্গানিক শর্তাবলি নামে পরিচিত। এতে বলা হয় –

  • ফ্রান্সে পোপের আদেশনামা ও পোপের কোনো প্রতিনিধি প্রেরণ সরকারের অনুমতি ছাড়া বৈধ হবে না
  • বিশপগণ জেলার প্রিফেক্টদের নিয়ন্ত্রণে থাকবেন;
  • পোপের নির্দেশে রবিবার ছুটির দিন বলে ধার্য হবে;
  • সর্বোপরি প্রোটেস্ট্যান্ট ও অন্যান্য সম্প্রদায়ের খ্রিস্টানরাও ধর্মীয় স্বাধীনতা পাবে।

এইভাবে গ্যালিকান মতবাদ ও ভ্যাটিকান মতবাদ-এর সমন্বয় সাধিত হয়।

কাকে দ্বিতীয় জাস্টিনিয়ান বলে অভিহিত করা হয় এবং কেন?

ফরাসি সম্রাট নেপোলিয়নকে দ্বিতীয় জাস্টিনিয়ান বলা হয়। মধ্যযুগে পূর্ব রোমান সাম্রাজ্য বা বাইজানটাইন সাম্রাজ্যের সম্রাট জাস্টিনিয়ান তাঁর সাম্রাজ্যের বিভিন্ন আইনগুলিকে প্রথম একটি গ্রন্থে সংকলিত করেন। ফরাসি সম্রাট নেপোলিয়নও ফ্রান্সে বিভিন্ন স্থানে প্রচলিত আইনগুলির সমন্বয়সাধন করে ১৮০৪ খ্রিস্টাব্দে কোড নেপোলিয়ন নামে নতুন আইন সংহিতা প্রণয়ন করেন। তাই নেপোলিয়নকে জাস্টিনিয়ানের সঙ্গে তুলনা করে দ্বিতীয় জাস্টিনিয়ান বলে অভিহিত করা হয়।

কোড নেপোলিয়ন বা নেপোলিয়নের আইন সংহিতা বলতে কী বোঝায়? কোড নেপোলিয়ন-এ কোন্ নীতির উপর গুরুত্ব দেওয়া হয়?

নেপোলিয়ন ফরাসি বিপ্লবের সাম্য-এর আদর্শের দ্বারা প্রচলিত পরস্পরবিরোধী (রোমান ও প্রাকৃতিক) আইনগুলির মধ্যে সামঞ্জস্য বিধান করে সমগ্র ফ্রান্সে এক ধরনের আইন প্রণয়নের উদ্যোগ নেন। তাঁর উদ্যোগে আইন বিশেষজ্ঞদের নিয়ে গঠিত কমিটির সুপারিশ অনুসারে ১৮০৪ খ্রিস্টাব্দে ফ্রান্সে নতুন আইনবিধি প্রবর্তিত হয়। ১৮০৭ খ্রিস্টাব্দে নেপোলিয়ন এর নামকরণ করেন কোড নেপোলিয়ন (Code Napoleon)। এতে বলা হয় আইনের চোখে সকলেই সমান।

কোড নেপোলিয়নের আইনগুলির শ্রেণিবিভাগ করো।

কোড নেপোলিয়নে মোট ২২৮৭টি বিধি ছিল। এই বিধিগুলি প্রধানত তিন ভাগে বিভক্ত। যথা –

  • দেওয়ানি আইন
  • ফৌজদারি আইন
  • বাণিজ্যিক আইন।

কোড নেপোলিয়নের প্রধান কয়েকটি বৈশিষ্ট্য উল্লেখ করো।

কোড নেপোলিয়ন-এর প্রধান কয়েকটি বৈশিষ্ট্য ছিল –

  • আইনের চোখে সকলে সমান,
  • সামন্ততান্ত্রিক অসাম্যের বিলোপ,
  • সরকারি চাকরিতে যোগ্যতা অনুসারে নিয়োগ,
  • ব্যক্তিস্বাধীনতার স্বীকৃতি,
  • সম্পত্তির অধিকারের স্বীকৃতি এবং
  • ধর্মীয় সহিষ্কৃতা ইত্যাদি।

কোড নেপোলিয়ন-এর ত্রুটির উল্লেখ করো।

কোড নেপোলিয়ন-এর প্রধান কয়েকটি ত্রুটি ছিল –

  • সমাজে নারীদের মর্যাদা হ্রাস,
  • শ্রমিকের গুরুত্বহীনতা ইত্যাদি।

কোড নেপোলিয়নের গুরুত্ব লেখো।

নেপোলিয়ন বোনাপার্ট প্রবর্তিত কোড নেপোলিয়নের মাধ্যমে –

  • ফ্রান্সের বিভিন্ন প্রদেশে একই ধরনের আইন প্রচলিত হয়।
  • এর ফলে প্রশাসনিক ও বিচারবিভাগীয় ক্ষেত্রে সংহতি দৃঢ় হয়।
  • পরবর্তীকালে ইউরোপের বিভিন্ন দেশের আইনব্যবস্থায় এই আইনগুলি স্থান পায়।

কে, কত খ্রিস্টাব্দে জাতীয় ব্যাংক বা ব্যাংক অফ ফ্রান্স প্রতিষ্ঠা করেন? এর খসড়া কে রচনা করেছিলেন?

অর্থনৈতিক ব্যবস্থায় শৃঙ্খলা আনয়নে তথা আর্থিক পুনর্গঠনের উদ্দেশ্যে নেপোলিয়ন ১৮০০ খ্রিস্টাব্দে জাতীয় ব্যাংক বা ব্যাংক অফ ফ্রান্স প্রতিষ্ঠা করেন।
এর খসড়া রচনা করেন প্যারিসের বিখ্যাত ব্যাংকার পেরেগল্প (Perregaux)। ১৮০৩ খ্রিস্টাব্দে এই ব্যাংক-কে নোট জারি করার পূর্ণ ক্ষমতা দেওয়া হয়।

লাইসি কী?

১৮০২ খ্রিস্টাব্দে নেপোলিয়ন বোনাপার্ট ফরাসি শহরগুলিতে কয়েকটি আদর্শ সরকারি মাধ্যমিক স্কুল প্রতিষ্ঠা করেন, যেগুলি লাইসি বা লিসে নামে পরিচিত হয়। লিসেগুলি ছিল আধাসামরিক বিদ্যালয়। এই সমস্ত এলিট বিদ্যালয়গুলিতে সামরিক ও অসামরিক কর্মচারীদের সন্তানরা পড়াশোনা করত।

লিজিয়ন অফ অনার কী?

লিজিয়ন অফ অনার হল এক বিশেষ ধরনের সম্মান বা উপাধি। নেপোলিয়ন রাষ্ট্রের প্রতি সেবা ও আনুগত্যের পুরস্কার স্বরূপ সামরিক ও অসামরিক ব্যক্তিদের লিজিয়ন অফ অনার প্রদানের প্রথা চালু করেছিলেন। নেপোলিয়ন মনে করতেন, এর ফলে জনগণের মধ্যে দেশসেবার মানসিকতা ও দক্ষতা বৃদ্ধি পাবে। লিজিয়ন অফ অনার ছিল ফ্রান্সের সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সম্মান।

পবিত্র রোমান সাম্রাজ্যের অবসান কে, কখন ঘটিয়েছিলেন?

১৮০৬ খ্রিস্টাব্দের ৬ আগস্ট অস্ট্রিয়ার সম্রাট দ্বিতীয় ফ্রান্সিস পবিত্র রোমান সাম্রাজ্যের সম্রাট উপাধি ত্যাগ করে অস্ট্রিয়ার রাজা হিসেবে প্রথম ফ্রান্সিস উপাধি গ্রহণ করলে পবিত্র রোমান সাম্রাজ্যের পতন ঘটে। এই সাম্রাজ্যের অবসান ঘটিয়েছিলেন নেপোলিয়ন বোনাপার্ট।

ফ্রান্সের বিরুদ্ধে প্রথম শক্তিজোট কবে, কাদের নিয়ে গঠিত হয়েছিল?

ফ্রান্সের বিরুদ্ধে প্রথম শক্তিজোট গঠিত হয়েছিল ১৭৯৩ খ্রিস্টাব্দে। এই জোটে ছিল — ইংল্যান্ড, অস্ট্রিয়া, প্রাশিয়া, স্পেন ইত্যাদি ইউরোপীয় দেশগুলি।

নবম শ্রেণীর ইতিহাসের এই অধ্যায়টিতে ফরাসি বিপ্লবের মূল আদর্শ, নেপোলিয়নীয় সাম্রাজ্য ও জাতীয়তাবাদের বিষয়গুলি আলোচনা করা হয়েছে। এই অধ্যায়টি থেকে শিক্ষার্থীরা ফরাসি বিপ্লবের প্রভাব, নেপোলিয়নের শাসনব্যবস্থা ও তার সাম্রাজ্যের পতন সম্পর্কে জানতে পারবে।

Rate this post


Join WhatsApp Channel For Free Study Meterial Join Now
Join Telegram Channel Free Study Meterial Join Now

মন্তব্য করুন