‘ওশান ডাম্পিং’-এর ক্ষতিকর প্রভাবগুলি কী কী?

আজকে আমরা আমাদের আর্টিকেলে দেখবো যে ‘ওশান ডাম্পিং’-এর ক্ষতিকর প্রভাবগুলি কী কী? এই প্রশ্ন দশম শ্রেণীর পরীক্ষার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ, এই প্রশ্নটি মাধ্যমিক ভূগোলের চতুর্থ অধ্যায় বজ্র ব্যাবস্থাপনার প্রশ্ন। ‘ওশান ডাম্পিং’-এর ক্ষতিকর প্রভাবগুলি কী কী? – আপনি পরীক্ষার জন্য তৈরী করে গেলে আপনি লিখে আস্তে পারবেন।

ওশান ডাম্পিং হলো সমুদ্রে বিভিন্ন ধরণের বর্জ্য পদার্থ, যেমন – তেল, রাসায়নিক, প্লাস্টিক, কৃষিক্ষেত্রের সার ও কীটনাশক, নোংরা পানি, ইত্যাদি ফেলা। এই বর্জ্য পদার্থ সমুদ্রের পরিবেশ এবং জীববৈচিত্র্যের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলে।

‘ওশান ডাম্পিং’-এর ক্ষতিকর প্রভাবগুলি হল —

  • সমুদ্রের জলে তেল বা তেলজাত পদার্থ নিক্ষেপ করলে সামুদ্রিক জীবদের শ্বাস-প্রশ্বাস প্রক্রিয়ায় ব্যাঘাত ঘটে। জলের ওপর তেলের স্তর পড়ে যায় ফলে সূর্যালোক সমুদ্রের জলের ভিতর প্রবেশ করতে পারে না। ফলে সামুদ্রিক উদ্ভিদ ও প্রবালকীটদের সালোকসংশ্লেষ প্রক্রিয়া ব্যাহত হয়।
  • সমুদ্রের জলে বিষাক্ত বর্জ্য পদার্থ নিক্ষেপ করলে সেইসব বর্জ্য আবর্জনা সামুদ্রিক মাছরা খেয়ে ফেলে ও বিষাক্ত হয়ে যায়। এরপর সেই মাছ মানুষ খেলে মানুষের স্বাস্থ্যের ক্ষতি হয়।
  • নোংরা আবর্জনা সমুদ্রে ফেললে সমুদ্রজলের অক্সিজেন ক্রমে নিঃশেষিত হয়ে যায়। যার ফলে সমুদ্রে বসবাসকারী সিল, ডলফিন, সার্ক প্রভৃতি মাছেদের মৃত্যু ঘটে।
  • প্লাস্টিক বোতল বা ব্যাগ সমুদ্রের জলে ফেললে সামুদ্রিক প্রাণীরা ভুল করে তা খেয়ে ফেলে মৃত্যুর কবলে পড়ে।

আজকের আর্টিকেল জুড়ে আমরা দেখলাম, কীভাবে ওশান ডাম্পিং আমাদের সমুদ্রের স্বাস্থ্যের উপর বিরাট ক্ষতি ফেলে। এই আবর্জনা ফেলায় সমুদ্রের জল দূষিত হয়, জীববৈচিত্র্য কমে যায়, এমনকী আমাদের স্বাস্থ্যের উপরেও এর খারাপ প্রভাব পড়ে।

এই সমস্যা মোকাবিলায় আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। মানুষকে ওশান ডাম্পিং-এর ক্ষতি সম্পর্কে সচেতন করতে হবে, কঠোর আইন তৈরি করে এটিকে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে এবং আবর্জনা ফেলার বিকল্প উপায় খুঁজে বের করতে হবে। যদি আমরা এখনই পদক্ষেপ না নিই, তাহলে ভবিষ্যতে সমুদ্রের আরও বড় ক্ষতি হতে পারে। আসুন, সবাই মিলে সুস্থ সমুদ্রের জন্য কাজ করি।

Rate this post


Join WhatsApp Channel For Free Study Meterial Join Now
Join Telegram Channel Free Study Meterial Join Now

মন্তব্য করুন