ভারতের প্রকৃতিক পরিবেশ – ভারতের ভূপ্রকৃতি – পার্থক্যধর্মী উত্তরভিত্তিক প্রশ্ন

আজকে আমরা আমাদের আর্টিকেলে আলোচনা করবো ভারতের ভূপ্রকৃতি – পার্থক্যধর্মী উত্তরভিত্তিক প্রশ্ন নিয়ে। এই প্রশ্নগুলি দশম শ্রেণীর পরীক্ষার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ, এই প্রশ্নটি মাধ্যমিক ভূগোলের পঞ্চম অধ্যায় ভারতের ভূপ্রকৃতির প্রশ্ন ও উত্তর ।

ভারতের ভূপ্রকৃতি

মালনাদ ও ময়দানের মধ্যে পার্থক্য লিখ।

মালনাদ ও ময়দানের পার্থক্যগুলি হল —

বিষয়মালনাদময়দান
অবস্থানকর্ণাটক মালভূমির পশ্চিমের অংশ মালনাদ নামে পরিচিত।কর্ণাটক মালভূমির পূর্বদিক ময়দান নামে পরিচিত।
অর্থমালনাদ শব্দের অর্থ পাহাড়ি দেশ।ময়দান কথার অর্থ নাতিউচ্চ ভূমিভাগ।
প্রকৃতিমালনাদ একধরনের ব্যবচ্ছিন্ন মালভূমি।ময়দান একধরনের সমপ্রায় সমভূমি।

কচ্ছ উপদ্বীপ এবং কাথিয়াবাড় উপদ্বীপের মধ্যে পার্থক্য লিখ।

কচ্ছ ও কাথিয়াবাড় উপদ্বীপের পার্থক্যগুলি হল —

বিষয়কচ্ছ উপদ্বীপকাথিয়াবাড় উপদ্বীপ
অবস্থানকচ্ছ উপসাগরের উত্তরে কচ্ছ উপদ্বীপটি গড়ে উঠেছে।উত্তরে কচ্ছ উপসাগর, দক্ষিণ-পূর্বে খাম্বাত উপসাগর এবং পশ্চিমে আরব সাগরের মাঝে কাথিয়াবাড় উপদ্বীপটি অবস্থিত।
গঠনকচ্ছ উপদ্বীপ মূলত বেলেপাথর দিয়ে গঠিত।কাথিয়াবাড় উপদ্বীপ মূলত লাভা দিয়ে গঠিত ভূমিভাগ।
জলাভূমিকচ্ছ উপদ্বীপে ভারতের অন্যতম রান বা জলাভূমি তৈরি হয়েছে।কাথিয়াবাড়ে এমন ভূমিরূপ নেই।

ভাঙ্গর ও খাদারের মধ্যে পার্থক্যগুলি লিখ।

ভাঙ্গর ও খাদারের পার্থক্যগুলি হল —

বিষয়ভাঙ্গরখাদার
প্রকৃতিপ্রাচীন পলি গঠিত অঞ্চল ভাঙ্গর নামে পরিচিত।নবীন পলি দিয়ে গঠিত ভূমিভাগ খাদার নামে পরিচিত।
উর্বরতাএটি প্রাচীন বলে উর্বরতা খাদার থেকে কম।এই মাটির উর্বরতা বেশি।
প্লাবনভাঙ্গর অঞ্চল উঁচু বলে এখানে প্রতি বছর প্লাবন হয় না।এটি নীচু ভূমি বলে প্রায় প্রতিবছরই প্লাবিত হয়।
মাটি ক্ষয়প্রাচীন পলি গঠিত ভাঙ্গরের মাটি ক্ষয়প্রাপ্ত হয়।এই অঞ্চলে প্রতিবছর নতুন নতুন মাটি সঞ্চিত হয়।

পূর্বঘাট এবং পশ্চিমঘাট পর্বতের মধ্যে পার্থক্যগুলি লিখ।

পূর্বঘাট এবং পশ্চিমঘাট পর্বতের পার্থক্যগুলি হল —

বিষয়পূর্বঘাট পর্বতপশ্চিমঘাট পর্বত
অবস্থানপূর্ব উপকূলে মহানদী নদীর অববাহিকায় দক্ষিণ সীমা থেকে ভাইগাই নদীর অববাহিকা পর্যন্ত।পশ্চিম উপকূলে তাপ্তী নদীর অববাহিকা থেকে দক্ষিণে কন্যাকুমারিকা পর্যন্ত।
প্রকৃতিএটি একটি ক্ষয়জাত পর্বতমালা।এটি তির্যক চ্যুতির স্তূপ পর্বত।
উচ্চতাপূর্বঘাট পর্বতের গড় উচ্চতা 600 মিটার।এর গড় উচ্চতা প্রায় 900 মিটার।
জলবিভাজিকাপূর্বঘাট পর্বত কোনো জলবিভাজিকা হিসেবে অবস্থান করে না।এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ জলবিভাজিকা।

ভাবর ও তরাই-এর মধ্যে পার্থক্যগুলি লিখ।

ভাবর ও তরাই-এর পার্থক্যগুলি হল –

বিষয়ভাবরতরাই
অবস্থানসিন্ধু থেকে তিস্তা পর্যন্ত শিবালিক পর্বতের পাদদেশের ভূমি ভাবর নামে পরিচিত।ভাবরের দক্ষিণ অংশ তরাই নামে পরিচিত।
গঠনছোটো ছোটো নুড়ি পাথর দিয়ে এই অংশটি তৈরি হয়েছে।প্রধানত বালি, কাদা, পলি দিয়ে তরাই ভূমি গঠিত হয়েছে।
উর্বরতামাটিতে নুড়ি, পাথর থাকে বলে এটি অনুর্বর মাটি, চাষবাস খুব ভালো হয় না।এই মাটি চাষের জন্য যথেষ্ট উর্বর।
বিস্তারভাবরের গড় বিস্তার 8-16 কিমি।এর গড় বিস্তার 20-30 কিমি।

পূর্ব হিমালয় ও পশ্চিম হিমালয়ের মধ্যে পার্থক্যগুলি লিখ।

পূর্ব হিমালয় ও পশ্চিম হিমালয়ের পার্থক্যগুলি হল —

বিষয়পূর্ব হিমালয়পশ্চিম হিমালয়
উচ্চতা ও বিস্তারপূর্ব হিমালয়ের উচ্চতা ও বিস্তার পশ্চিম হিমালয়ের তুলনায় কম।পশ্চিম হিমালয় অনেক বেশি উঁচু ও বিস্তৃত।
গিরিশৃঙ্গ ও হিমবাহপূর্ব হিমালয়ে গিরিশৃঙ্গ এবং হিমবাহের সংখ্যা খুব কম।শৃঙ্গগুলি খুব উঁচু উঁচু এবং হিমবাহের পরিমাণ কম।
ঢালপূর্ব হিমালয় বেশি ঢালবিশিষ্ট ও খাড়া।পশ্চিম হিমালয়ের ঢাল কম এবং কম খাড়া।

আজকের আলোচনায় আমরা ভারতের ভূপ্রকৃতি – পার্থক্যধর্মী উত্তরভিত্তিক প্রশ্ন বিশ্লেষণ করেছি। এই প্রশ্নগুলি দশম শ্রেণীর পরীক্ষার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, কারণ এগুলি মাধ্যমিক ভূগোলের পঞ্চম অধ্যায়ের একটি মূল অংশ।

5/5 - (1 vote)


Join WhatsApp Channel For Free Study Meterial Join Now
Join Telegram Channel Free Study Meterial Join Now

মন্তব্য করুন