বহুমুখী নদী উপত্যকা পরিকল্পনা কি? বহুমুখী নদী উপত্যকা পরিকল্পনার সুবিধা

আজকে আমরা আমাদের আর্টিকেলে দেখবো বহুমুখী নদী উপত্যকা পরিকল্পনা কি? বহুমুখী নদী উপত্যকা পরিকল্পনার সুবিধা – এই প্রশ্ন দশম শ্রেণীর পরীক্ষার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ, এই প্রশ্নটি মাধ্যমিক ভূগোলের পঞ্চম অধ্যায় ভারতের প্রাকৃতিক পরিবেশ অধ্যায়ের ভারতের জলসম্পদ বিভাগের প্রশ্ন। বহুমুখী নদী উপত্যকা পরিকল্পনা কি? বহুমুখী নদী উপত্যকা পরিকল্পনার সুবিধা আপনি পরীক্ষার জন্য তৈরী করে গেলে আপনি লিখে আস্তে পারবেন।

নমস্কার বন্ধুরা! আজকের আর্টিকেলে আমরা আলোচনা করবো বহুমুখী নদী উপত্যকা পরিকল্পনা সম্পর্কে। দশম শ্রেণীর মাধ্যমিক ভূগোল পরীক্ষার জন্য এই বিষয়টি বেশ গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ করে, ভারতের প্রাকৃতিক পরিবেশ অধ্যায়ের ভারতের জলসম্পদ বিভাগে এই প্রশ্নটি বারবার দেখা যায়।

এই আর্টিকেলে আমরা বহুমুখী নদী উপত্যকা পরিকল্পনা কী তা জানবো এবং এর সুবিধা সম্পর্কে আলোচনা করবো। এই বিষয়টি সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকলে তুমি পরীক্ষায় ভালো উত্তর লিখতে পারবে।

বহুমুখী নদী উপত্যকা পরিকল্পনা

বহুমুখী নদী উপত্যকা পরিকল্পনা

বহুমুখী নদী উপত্যকা পরিকল্পনা হল একটি সমন্বিত পদ্ধতি যা নদীর জল ও সম্পদের সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করে। এই পরিকল্পনার মাধ্যমে নদীর উপর বাঁধ নির্মাণ করে বন্যা নিয়ন্ত্রণ, সেচ, জলবিদ্যুৎ উৎপাদন, নৌ চলাচল, মৎস্যচাষ, পানীয় জল সরবরাহ ইত্যাদি বহুমুখী উদ্দেশ্য সাধন করা হয়। এর ফলে নদী উপত্যকা অঞ্চলের সামগ্রিক উন্নয়ন ও সমৃদ্ধি ঘটে।

বহুমুখী নদী উপত্যকা পরিকল্পনার সুবিধা

বহুমুখী নদী উপত্যকা পরিকল্পনা থেকে নানা রকমের সুবিধা পাওয়া যায় –

  • বন্যার হাত থেকে কোনো অঞ্চলকে বাঁচানো বা বন্যা নিয়ন্ত্রণ করা যায়
  • জলাধারের সঞ্চিত জলকে ব্যবহার করে সারাবছর খালের সাহায্যে জলসেচ করা যায়
  • জলাধারের জলকে ব্যবহার করে জলবিদ্যুৎ উৎপাদন করা যায়
  • জলাধারের জলকে পরিস্তুত করে পানীয় হিসেবে ব্যবহার করা যায়
  • নদীতে বাঁধ দিলে জলের গতিবেগ কমে যায় বলে ভূমিক্ষয় কম হয়
  • নদীর আড়াআড়ি বাঁধ নির্মাণ করা হয় বলে ওই বাঁধগুলি সেতুর কাজ করে
  • জলাশয়গুলিতে সারাবছর স্থায়ীভাবে জল থাকায় এখানে মাছচাষ করা যায়
  • ওইসব জলাধারের কাছাকাছি অঞ্চলে পর্যটনকেন্দ্রও গড়ে ওঠে।

এই ব্লগ পোস্টে, আমরা বহুমুখী নদী উপত্যকা পরিকল্পনা (এমভিআরভিপি) এবং এর সুবিধাগুলি সম্পর্কে আলোচনা করেছি। এমভিআরভিপিগুলি নদী এবং এর উপত্যকা একত্রিতভাবে ব্যবহার করে সেচ, জলবিদ্যুৎ উৎপাদন, বন্যা নিয়ন্ত্রণ, নৌচলাচল এবং জল সরবরাহের মতো একাধিক উদ্দেশ্য পূরণের জন্য পরিকল্পিত।

এই প্রকল্পগুলি ভারতের মতো উন্নয়নশীল দেশের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কারণ এগুলি কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি, বিদ্যুৎ সরবরাহ উন্নত করা এবং বন্যা ও খরা নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে।

4/5 - (1 vote)


Join WhatsApp Channel For Free Study Meterial Join Now
Join Telegram Channel Free Study Meterial Join Now

মন্তব্য করুন