মাধ্যমিক ভূগোল – বারিমন্ডল – একটি বা দুটি শব্দে উত্তর দাও

মাধ্যমিক ভূগোল বিষয়ের দ্বিতীয় অধ্যায় হলো বারিমন্ডল, ছাত্র/ছাত্রী যারা মাধ্যমিক পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছ তাদের জন্য নিচে এই অধ্যায় সংক্রান্ত কিছু প্রশ্ন ও উত্তর দেওয়া হলো। প্রতিটি প্রশ্নের মান 1.

Table of Contents

বারিমন্ডল

সমুদ্রজলের এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় চলনকে কী বলে?

সমুদ্রস্রোত।

সমুদ্রজলের একই স্থানের ওঠানামাকে কী বলে?

সমুদ্রতরঙ্গ।

সমুদ্রতরঙ্গ উপকূল পেরিয়ে সৈকতে আছড়ে পড়লে তাকে কী বলে?

সম্মুখ তরঙ্গ।

সমুদ্রের ঢেউ যখন উপকূল থেকে সমুদ্রের দিকে যায় তখন তাকে কী বলে?

পশ্চাৎগামী তরঙ্গ।

পশ্চাৎগামী তরঙ্গকে আর কী নামে ভাবা হয়?

বিনাশকারী তরঙ্গ।

ছোটো ছোটো যে তরঙ্গগুলি উপকূলভাগ গঠন করে তাকে কী বলে?

গঠনকারী তরঙ্গ।

যে স্রোত সমুদ্রের উপরিভাগ দিয়ে প্রবাহিত হয় তাকে কী বলে?

বহিঃস্রোত।

যে স্রোত সমুদ্রের নীচের অংশ দিয়ে এগিয়ে যায় তাকে কী বলে?

অন্তঃস্রোত।

সমুদ্রস্রোতের প্রধান নিয়ন্ত্রক কে?

নিয়ত বায়ু।

উম্ন স্রোত কোন্ দিক থেকে কোন্ দিকে প্রবাহিত হয়?

নিরক্ষীয় অঞ্চল থেকে মেরুর দিকে।

শীতল স্রোত কোন্ দিক থেকে কোন্ দিকে যায়?

মেরু থেকে নিরক্ষরেখার দিকে।

আটলান্টিক মহাসাগরের একটি মগ্নচড়ার নাম করো।

গ্র্যান্ড ব্যাংক।

কোন্ গোলার্ধে জলভাগের আয়তন বেশি?

দক্ষিণ গোলার্ধে।

পৃথিবীর গভীরতম মহাসাগরের নাম কী?

প্রশান্ত মহাসাগর।

ভারত মহাসাগরের উত্তর ভাগের স্রোতগুলি কোন্ কোন্ বায়ু দ্বারা প্রভাবিত হয়?

দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু ও উত্তর-পূর্ব মৌসুমি বায়ু দ্বারা।

কোন্ বায়ুর দ্বারা ভারত মহাসাগরের সমুদ্রস্রোত নিয়ন্ত্রিত হয়?

মৌসুমি বায়ু।

কোন্ মহাসাগরে শৈবাল সাগর দেখা যায়?

আটলান্টিক মহাসাগরে।

পৃথিবীর গভীরতম সমুদ্রখাতের নাম কী?

মারিয়ানা খাত।

স্রোতহীন ও ভাসমান উদ্ভিদযুক্ত সমুদ্র অঞ্চলকে কী বলে?

শৈবাল সাগর।

কোন্ দুটি স্রোতের মিলিত প্রবাহ আগুলহাস স্রোতের সৃষ্টি করে?

মোজাম্বিক স্রোত ও মাদাগাস্কার স্রোত।

আটলান্টিক মহাসাগরের একটি সমুদ্রস্রোতের নাম লেখো।

বেঙ্গুয়েলা স্রোত।

পৃথিবীর কত ভাগ অংশ জলবেষ্টিত?

71 শতাংশ।

ভূপৃষ্ঠের কতখানি অংশ জলভাগ বেষ্টিত?

36 কোটি 17 লক্ষ 40 হাজার বর্গকিমি।

পৃথিবীতে জলভাগের পরিমাণ বেশি বলে পৃথিবীকে কী নামে ভাবা হয়?

নীলগ্রহ।

পৃথিবী থেকে চাঁদের দূরত্ব কত?

3.84 লক্ষ কিমি।

জোয়ারভাটার প্রধান কারণ কী?

চন্দ্র এবং সূর্যের আকর্ষণ।

চাঁদের আকর্ষণে সৃষ্ট জোয়ারকে কী বলে?

চান্দ্র জোয়ার।

সূর্যের আকর্ষণে সৃষ্ট জোয়ার কী নামে পরিচিত?

সৌর জোয়ার।

পৃথিবীর একই স্থানে দিনে কতবার জোয়ার হয়?

দু-বার।

দুটি গৌণ জোয়ারের মধ্যে ব্যবধান কত?

12 ঘণ্টা 26 মিনিট।

দুটি মুখ্য জোয়ারের মধ্যে সময়ের পার্থক্য কত?

24 ঘণ্টা 52 মিনিট।

কোন্ কোন্ সাগরে জোয়ারভাটা হয় না?

ভূমধ্যসাগর ও বাল্টিক সাগর।

চাঁদ একদিনে তার কক্ষপথে কত ডিগ্রি অতিক্রম করে?

প্রায় 13°।

চাঁদ, সূর্য, পৃথিবী এক সরলরেখায় থাকলে তাকে কী বলে?

সিজিগি।

জোয়ারভাটা খেলে এমন একটি নদীর নাম করো।

হুগলি নদী।

কোন্ শক্তির প্রভাবে গৌণ জোয়ার হয়?

বিকর্ষণ শক্তি।

আপেক্ষিক অবস্থানে চাঁদ ও পৃথিবীর মধ্যে দূরত্ব কত হয়?

4 লক্ষ 07 হাজার কিমি।

কোন্ জোয়ারের সাথে নদীতে বান ডাকে?

ভরা জোয়ারে।

সাধারণত কোন্ ঋতুতে বান ডাকে?

বর্ষা ঋতুতে।

পেরিজি অবস্থানে চাঁদ ও পৃথিবীর মধ্যে দূরত্ব কত হয়?

3 লক্ষ 56 হাজার কিমি।

চাঁদ এবং সূর্যের জোয়ার উৎপন্ন করার ক্ষমতার প্রকৃত অনুপাত কত?

11:5 অনুপাত।

চাঁদের কক্ষপথটি কেমন দেখতে?

উপবৃত্তাকার।

আরও পড়ুন – মাধ্যমিক ভূগোল – বারিমন্ডল – সংক্ষিপ্ত উত্তরভিত্তিক প্রশ্ন

Rate this post


Join WhatsApp Channel For Free Study Meterial Join Now
Join Telegram Channel Free Study Meterial Join Now

মন্তব্য করুন