মরুদ্যান কি? মরূদ্যান কীভাবে সৃষ্টি হয়?

আজকে আমরা আমাদের আর্টিকেলে দেখবো যে মরুদ্যান কি? মরূদ্যান কীভাবে সৃষ্টি হয়? এই প্রশ্ন দশম শ্রেণীর পরীক্ষার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ, মরুদ্যান কি? মরূদ্যান কীভাবে সৃষ্টি হয়? প্রশ্নটি আপনি পরীক্ষার জন্য তৈরী করে গেলে আপনি লিখে আস্তে পারবেন।

মরুদ্যান কি?

মরু অঞ্চলে দীর্ঘদিন ধরে বাতাসের প্রভাবে বালিরাশি এক স্থান থেকে সরে গেলে, সেই স্থানটি ধীরে ধীরে নিচের দিকে নেমে যেতে থাকে। এক পর্যায়ে ভূগর্ভস্থ জলস্তর উন্মুক্ত হয়ে পড়ে। ফলে ওই স্থানে জলাশয় তৈরি হয় এবং ক্রমশ উদ্ভিদের জন্ম হয়। এর ফলে ওই অঞ্চলে মনোরম পরিবেশ তৈরি হয়। শুষ্ক মরু অঞ্চলের মধ্যে এরকম সবুজাভ স্থানকে মরুদ্যান বলা হয়।

মরূদ্যান কীভাবে সৃষ্টি হয়?

মরু অঞ্চলে বায়ুর অপসারণ প্রক্রিয়ার ফলে মরুভূমির বালি অনেক সময় এক স্থান থেকে আর-এক স্থানে উড়ে যায়। দীর্ঘদিন ধরে মরুভূমির কোনো অংশে এই প্রক্রিয়া চললে সেই স্থানের ভূমিভাগ অবনত হয়ে যায়। এইভাবে বালি অপসারিত হতে হতে যখন অবনত এলাকাটির গভীরতা ভূগর্ভের জলস্তর পর্যন্ত পৌঁছে যায়, তখন সেখানে মরূদ্যান সৃষ্টি হয়।

আরও পড়ুন – পৃথিবীর কোথায় কোথায় মরুভূমি দেখা যায়?

মরু অঞ্চলে বায়ুর কোন কাজের ফলে মরুদ্দ্যান সৃষ্টি হয়?

যেসব দেশের জলবায়ু মরুভূমির মতো, কিন্তু কিছু নির্দিষ্ট অঞ্চলে বৃষ্টিপাতের কারণে স্থানীয়ভাবে উদ্ভিদ জন্মাতে পারে, সেসব দেশকে জলবায়ুগত মরুদ্যান বলা হয়।
উদাহরণ: উত্তর আফ্রিকার মরক্কো, আলজেরিয়া, তিউনিসিয়া, লিবিয়া, মিশর

ওয়েসিস কি?

মরুভূমির মধ্যে যেসব স্থানে ভূগর্ভস্থ জলের উৎস থাকে এবং সেখানে উদ্ভিদ জন্মে, সেসব স্থানকে ওয়েসিস বলা হয়।

ধ্রিয়ান কাকে বলে?

ধ্রিয়ান মরুভূমিতে বায়ুপ্রবাহের দ্বারা স্থানান্তরিত বালির ঢিবির একটি রূপ। এগুলি সাধারণত বড়, অস্থায়ী এবং সরল-ঢালযুক্ত।

এই আর্টিকেলে আমরা মরুদ্যান কী এবং কীভাবে তৈরি হয় তা বিস্তারিতভাবে আলোচনা করেছি। আমরা দেখেছি যে মরুদ্যান হল মরুভূমির মধ্যে জলের উৎসের চারপাশে গাছপালা ও জীববৈচিত্র্য সমৃদ্ধ এলাকা। এই আর্টিকেলটিতে আলোচিত বিষয়গুলো দশম শ্রেণীর ভূগোল পরীক্ষার জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

2/5 - (1 vote)


Join WhatsApp Channel For Free Study Meterial Join Now
Join Telegram Channel Free Study Meterial Join Now

মন্তব্য করুন