শিল্পক্ষেত্রের বর্জ্য জল কীভাবে শোধন করা যায়?

আজকে আমরা আমাদের আর্টিকেলে দেখবো যে শিল্পক্ষেত্রের বর্জ্য জল কীভাবে শোধন করা যায়? এই প্রশ্ন দশম শ্রেণীর পরীক্ষার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ, শিল্পক্ষেত্রের বর্জ্য জল কীভাবে শোধন করা যায়? – এই প্রশ্নটি মাধ্যমিক ভূগোলের চতুর্থ অধ্যায় বজ্র ব্যাবস্থাপনার প্রশ্ন। আপনি পরীক্ষার জন্য তৈরী করে গেলে আপনি লিখে আস্তে পারবেন।

শিল্পক্ষেত্রের বর্জ্য জল কীভাবে শোধন করা যায়?

শহর, নগরের কলকারাখানা থেকে নির্গত বর্জ্য জলে নানা ধরনের অ্যাসিড, জৈব এবং অজৈব বর্জ্য পদার্থ থাকে। কারখানা থেকে পরিত্যক্ত ওই অম্ল বা ক্ষারীয় জল ছাড়ার আগে প্রশমিত করা দরকার। কিন্তু রাসায়নিক কারখানার বর্জ্য রাসায়নিকভাবে শোধন করা উচিত। এ ছাড়া শহর নগরের পয়ঃপ্রণালীর জলকেও শোধনাগারের মাধ্যমে শোধন করে ছাড়া উচিত।

কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নোত্তর

জল শোধন এর নানা পদ্ধতি গুলির নাম বলো?

পরিশোধন, জীবাণুনাশক, রাসায়নিক প্রক্রিয়া, আয়ন বিনিময়, অধঃক্ষেপণ, ক্লোরামাইনেশন ইত্যাদি।

বর্জ্য জল শোধন হয় কটি স্তরে?

বর্জ্য জল শোধন সাধারণত তিনটা ধাপে হয়। প্রথম ধাপে বড়ো জোনা জিনিস, চর্বি, আর তেল ঠিকানা করা হয়। এরপর জলের তলায় যে ভারী জিনিস জমে থাকে সেগুলোকে আলাদা করে ফেলা হয়। দ্বিতীয় ধাপে জলের মধ্যে থাকা জীবন্তের মতো জিনিসগুলোকে ভাঙা হয়, সাধারণত এর জন্য জীবাণুদের সাহায্য নেওয়া হয়। এ ছাড়া এই ধাপে কার্বন আর নাইট্রোজেন জাতীয় উপাদানও জল থেকে সরিয়ে ফেলা হয়। শেষ ধাপে আরও ভালো করে জল পরিষ্কার করা হয়, যাতে খাওয়ার উপযোগী হয়। এছাড়া জীবাণু মেরে ফেলা এবং স্বাদ ও গন্ধ উন্নত করাও এই ধাপের কাজ। কখনও কখনও আরও কিছু পদ্ধতি ব্যবহার করা লাগতে পারে। তবে সব জায়গায় এই তিন ধাপই মোটামুটি ঠিক থাকে।

বর্জ্য জল শোধন হয় কটি স্তরে?

আমাদের বাড়ি থেকে যে ময়লা জল চলে যায়, সেটাকেই বর্জ্য জল বলে। এই জলকে পরিষ্কার করে আবার ব্যবহারের উপযোগী করার জন্য তিন ধাপের একটা পদ্ধতি আছে।

প্রথম ধাপ: এই ধাপে মোটা আবর্জনা, চর্বি, আর তেলের মতো জিনিসগুলোকে ছেঁকে বার করে ফেলা হয়। যেমন, বড়ো পাথর, প্লাস্টিক, খাবারের অবশিষ্টাংশ ইত্যাদি।

দ্বিতীয় ধাপ: এই ধাপে জলের মধ্যে থাকে এমন জীবাণুদের সাহায্য নিয়ে various (ভেরিওস) জৈবিক জিনিসপত্রগুলোকে ভাঙা হয়। এই প্রক্রিয়াতে কার্বন এবং নাইট্রোজেনের মতো উপাদানগুলোও সরিয়ে ফেলা হয়।

তৃতীয় ধাপ: শেষ ধাপে জলটাকে আরও পরিষ্কার করা হয়। এটা বিশেষ করে খাওয়ার জলের জন্য খুব জরুরি। এই সময় জলের মধ্যে থাকতে পারে এমন ক্ষতিকারক জীবাণু এবং ভাইরাসগুলোকে মেরে ফেলা হয়। এছাড়া, জলের স্বাদ ও গন্ধ ঠিক করে নেওয়া হয় যাতে আমরা সবাই আরামের সাথে সেটা পান করতে পারি।

কখনও কখনও পরিস্থিতি অনুযায়ী আরও কিছু অতিরিক্ত পদ্ধতির দরকার হতে পারে। কিন্তু এই তিন ধাপই বর্জ্য জল শোধনের মূল ভিত্তি।

আজকের আর্টিকেলে আমরা শিল্পের বর্জ্য জল কীভাবে পরিষ্কার করা হয়, সেই বিষয়ে জানলাম। মাধ্যমিকের ভূগোল পরীক্ষায় এটা খুব জরুরি জানা। শিল্প কারখানা থেকে যে জল বের হয়, তাতে থাকে নানা রকমের ময়লা। এই ময়লা পরিবেশের জন্য খারাপ। বর্জ্য জল শোধন করার বিভিন্ন পদ্ধতি আছে, যার সাহায্যে এই ময়লা জল থেকে আলাদা করা হয়। এই আর্টিকেল পড়ে আপনি পরীক্ষার জন্য ভালো করে প্রস্তুত হতে পারবেন।

Rate this post


Join WhatsApp Channel For Free Study Meterial Join Now
Join Telegram Channel Free Study Meterial Join Now

মন্তব্য করুন