আমাকে রাগালে কী হয়, এবার বুঝলি তো। – কে, কাকে উদ্দেশ্য করে কথাটি বলেছে? কোন্ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে মন্তব্যটি করা হয়েছে?

“আমাকে রাগালে কী হয়, এবার বুঝলি তো।” এই উক্তিটি দশম বাংলা সহায়ক পাঠ কোনি উপন্যাস থেকে নেওয়া হয়েছে। “আমাকে রাগালে কী হয়, এবার বুঝলি তো।” – কে, কাকে উদ্দেশ্য করে কথাটি বলেছে? কোন্ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে মন্তব্যটি করা হয়েছে? এই প্রশ্নটি মাধ্যমিক বাংলা পরীক্ষার জন্য অত্যান্ত গুরুত্তপূর্ণ। কোনি উপন্যাসের এই রচনাধর্মী প্রশ্নটি তৈরী করে গেলে মাধ্যমিক বাংলা পরীক্ষায় একটি ৫ নম্বরের পাওয়া যেতে পারে।

কোনি নামের একটা মেয়ে ছিল। সে খুব সাহসী এবং দৃঢ়চেতা ছিল। একদিন, সে তার বন্ধুদের সাথে গঙ্গায় আম ধরার প্রতিযোগিতা করছিল। যখন সে প্রায় জিতে যাবে, তখন ভাদু নামের একটা ছেলে তার চুল ধরে টেনে কাদায় ফেলে দিতে চায়।

কোনি রেগে গেল এবং ভাদুর হাত কামড়ে ধরে। সে ভাদুর চোখ খুবলে নেওয়ার হুমকিও দেয়। ভাদু ভয়ে কোনির কাছে আত্মসমর্পণ করে এবং আমটি ফেরত দিয়ে দেয়।

আমাকে রাগালে কী হয়, এবার বুঝলি তো। - কে, কাকে উদ্দেশ্য করে কথাটি বলেছে? কোন্ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে মন্তব্যটি করা হয়েছে?

আমাকে রাগালে কী হয়, এবার বুঝলি তো। – কে, কাকে উদ্দেশ্য করে কথাটি বলেছে? কোন্ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে মন্তব্যটি করা হয়েছে?

বক্তা ও উদ্দিষ্ট জন – কোনি উপন্যাসের প্রধান চরিত্র কোনি ভাদুকে উদ্দেশ্য করে আলোচ্য মন্তব্যটি করেছে।

আলোচ্য মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিত –

  • আম ধরার প্রতিযোগিতা – গঙ্গায় নিয়মিত সাঁতার কাটা ও হুটোপাটিতে অভ্যস্ত কোনি এবং তার দুই সঙ্গী গঙ্গায় ভেসে যাওয়া আম ধরার জন্য প্রতিযোগিতা করছিল।
  • কোনির লক্ষ্যে বাধা – কোনি যখন লক্ষ্যের প্রায় কাছাকাছি, সেই সময়ে ভাদু তার চুল ধরে টানে এবং তার মাথা ধরে কাদায় মুখ ঘষে দেওয়ার চেষ্টা করে।
  • কোনির পালটা জবাব – কোনি তার পালটা হিসেবে ভাদুর ডান হাতটা মুখের কাছে টেনে তার দুটো আঙুলে কামড়ে দেয়। শুধু তাই নয়, সে ভাদুর উপরে ঝাঁপিয়ে পড়ে তার চোখ খুবলে নেওয়ার এবং গঙ্গার মাটিতে পুঁতে দেওয়ার হুমকি দেয়। চণ্ডু, কান্ডিরা অনেক চেষ্টা করেও কোনিকে থামাতে পারে না। তখন – কোনির ঠোঁটের কোণে ফেনা, সামনের দাঁত হিংস্রভাবে বেরিয়ে রয়েছে।
  • ভাদুর আত্মসমর্পণ – রক্তাক্ত ভাদু হিংস্র কোনির সামনে আত্মসমর্পণ করতেবাধ্য হয় এবং তাকে আমটি ফেরত দিয়ে দেয়।
  • কোনির মানসিক স্থিরতা – সেই আমে কামড় দিয়ে তার টক স্বাদে বিব্রত হয়ে কোনি আমটিকে আবার জলেই ছুঁড়ে ফেলে দেয়। এতে তার মানসিক স্থিরতা ফিরে আসে। সে ভাদুর হাতের ক্ষতের খবর নেয় এবং তখনই কিছুটা নরম হয়ে প্রশ্নে উদ্ধৃত মন্তব্যটি করে।

আরও পড়ুন, ওর চোখে এখন রাগের বদলে কৌতূহল। – কার কথা বলা হয়েছে? তাঁর রাগ এবং কৌতূহলের কারণ লেখো।

কোনি, একজন সাহসী ও হিংস্র মেয়ে, আম ধরার প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে। তার দুই সঙ্গী যখন ভেসে যাওয়া আম ধরার জন্য লড়াই করছিল, তখন কোনি নিয়মিত সাঁতার কাটা ও হুটোপাটিতে অভ্যস্ত না থাকা সত্ত্বেও লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে যায়।

কিন্তু ভাদু, তার প্রতিযোগী, কোনির লক্ষ্যে বাধা দেয়। ভাদু কোনির চুল ধরে টানে এবং তাকে কাদায় ফেলে দেওয়ার চেষ্টা করে। এর প্রতিশোধে কোনি ভাদুর আঙুল কামড়ে দেয় এবং তাকে গঙ্গার মাটিতে পুঁতে দেওয়ার হুমকি দেয়।

ভাদু, রক্তাক্ত ও আতঙ্কিত, কোনির সামনে আত্মসমর্পণ করে এবং আমটি ফেরত দেয়। কোনি, আমের টক স্বাদে বিরক্ত হয়ে, তা জলে ফেলে দেয় এবং তার মানসিক স্থিরতা ফিরে পায়।

এই গল্পটি কোনির সাহস, হিংস্রতা, এবং মানসিক দুর্বলতার চিত্র তুলে ধরে।

Rate this post


Join WhatsApp Channel For Free Study Meterial Join Now
Join Telegram Channel Free Study Meterial Join Now

মন্তব্য করুন