মাধ্যমিক ভূগোল – ভারতের অর্থনৈতিক পরিবেশ – ভারতের পরিবহণ ও যোগাযোগ ব্যবস্থা – একটি বা দুটি শব্দে উত্তর দাও

পশ্চিমবঙ্গ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের মাধ্যমিক ভূগোল পরীক্ষায় পঞ্চম অধ্যায়ের বিষয়বস্তু হল ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ। এই অধ্যায়ে ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগের বিভিন্ন দিক সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে। এই অধ্যায়ের প্রশ্নাবলী সাধারণত বহুবিকল্পভিত্তিক, সংক্ষিপ্ত, অতিসংক্ষিপ্ত এবং রোচনাধর্মী আকারে থাকে।

Table of Contents

ভারতের পরিবহণ ও যোগাযোগ ব্যবস্থা – একটি বা দুটি শব্দে উত্তর দাও

মাধ্যমিক ভূগোল বর্ণনা করে যে পৃথিবীতে মানব বসবাস করে তার অর্থনৈতিক পরিবেশ নিয়ে জ্ঞান নির্মাণ করে। ভারত একটি প্রস্তুত একটি দেশ এবং এটি বিভিন্ন প্রকার উৎস থেকে বিভিন্ন প্রকারের আয় উপার্জন করে। ভারতের অর্থনৈতিক পরিবেশ শহর এবং গ্রামীণ এলাকায় ভিন্ন ভিন্ন হতে পারে। ভারতে কৃষি, কৃষিপ্রধান শিল্প, খনিজ উৎপাদন এবং পরিবহন ব্যবসা অর্থনৈতিক গুরুত্বপূর্ণ খাতে উল্লেখযোগ্য।

ভারতের অর্থনৈতিক পরিবেশ বলতে বাণিজ্য, ব্যবসায় এবং অর্থনৈতিক প্রস্তুতি সম্পর্কে কথা বলা হয়। এটি বিশ্বের দ্বিতীয় সবচেয়ে বড় জনবহুল দেশ হিসাবে পরিচিত। ভারতের অর্থনৈতিক পরিবেশ বিভিন্ন খাতে উন্নয়নে অভিজ্ঞ হয়েছে, যেমন শিল্প, কৃষি, পরিবহন এবং পরিবেশের উন্নয়ন। ভারতের অর্থনৈতিক প্রস্তুতি বৃদ্ধি করার জন্য সরকার প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়া হয়, যেমন উন্নয়ন প্রকল্প, নির্যাতন বাধানুগত আদায়, নিবেদন, নিয়োগ প্রক্রিয়া এবং আর্থিক বিবেচনা।

ভারতের পরিবহন ও যোগাযোগ ব্যবস্থা অন্তর্ভুক্ত সকল প্রকার পরিবহন ও যোগাযোগ ব্যবস্থার মধ্যে জন্মগ্রহণ করে। এটি সম্পূর্ণ দেশটির পরিবহন ও যোগাযোগ ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠানগুলি একত্রিত করে এবং তাদের কাজের উপযোগিতা বৃদ্ধি করে। ভারতের জনসংখ্যার বৃদ্ধি এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নের সাথে সাথে এই ব্যবস্থাও এগিয়ে চলেছে। ভারতের পরিবহন ও যোগাযোগ ব্যবস্থা সম্পর্কে বিভিন্ন ধরণের তথ্য প্রকাশ করা হয়, যেমন সড়ক পরিবহন, রেলপথ পরিবহন, বিমান পরিবহন, সেইচাকরি যোগাযোগ ব্যবস্থা এবং সম্পূর্ণ পরিবহন ও যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন সম্পর্কে।

পণ্য দ্রব্য, মানুষ অথবা স্থানান্তরযোগ্য যে – কোনো দ্রব্যকে একজায়গা থেকে অন্য জায়গায় পৌঁছানোকে কী বলে?

পরিবহণ।

পরিবহণের রাজনৈতিক গুরুত্ব কী?

দেশের প্রতিরক্ষা ও জাতীয় ঐক্য স্থাপন।

আমাদের দেশের হাইওয়ে ইংল্যান্ডে কী নামে পরিচিত?

মোটরওয়েজ।

ভারতে মোট কত ধরনের সড়কপথ রয়েছে?

সাত ধরনের।

স্থলপথের সর্বশ্রেষ্ঠ পরিবহণ মাধ্যম কোনটি?

রেলপথ।

পৃথিবীর তৃতীয় বৃহত্তম রেলপথ কোনটি?

ভারতীয় রেল।

মেট্রোরেলের সদর দপ্তর কোথায় অবস্থিত?

কলকাতা।

পশ্চিমবঙ্গের একটি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নাম করো।

কলকাতার নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর।

ভারতের একটি অন্তর্দেশীয় বিমান সংস্থার নাম করো |

এয়ার ইন্ডিয়া।

পবন হনস লিমিটেড সংস্থাটি কত সালে গঠিত হয়?

1985 সালে।

কোন্ ধরনের পরিবহণ ব্যবস্থায় ব্যয় সবচেয়ে কম?

জলপথ।

বর্তমানে দূরবর্তী যোগাযোগ করার মূল মাধ্যম কী?

কৃত্রিম উপগ্রহ।

দেশের মধ্যে টেলিযোগাযোগ সরকারি পরিসেবা কোন্ সংস্থার মাধ্যমে ঘটে?

BSNL

বিদেশের সঙ্গে টেলি পরিসেবা করতে সাহায্য করে কে?

VSNL

টেলি পরিসেবা – সংক্রান্ত বিষয়গুলি পর্যালোচনা করে কোন্ সংস্থা?

TRAI

ভারতের বৃহত্তম সংবাদ এজেন্সি কোনটি?

প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়া (PTI)

পৃথিবীর প্রথম ডাক যোগাযোগের ব্যবস্থা কোথায় কত সালে গড়ে ওঠে?

চিনে, খ্রিস্টপূর্ব 900 সালে।

কোন্ দেশের ডাক ব্যবস্থা পৃথিবীর মধ্যে সর্ববৃহৎ?

ভারতের।

কত সালে ভারতে প্রথম কম্পিউটার ব্যবহার শুরু হয়?

1955 সালে।

ভারতে প্রথম কম্পিউটার কোথায় ব্যবহার শুরু হয়?

কলকাতার ইন্ডিয়ান স্ট্যাটিসটিক্যাল ইনসটিটিউট – এ (ISI)।

এশিয়ার মধ্যে কোন্ শহর প্রথম কম্পিউটার ব্যবহার শুরু করে?

কলকাতা (1955 সালে)।

পরিবহণ ও যোগাযোগ কোন্ ধরনের পরিসেবা?

তৃতীয় পর্যায়ের।

বাজারের চাহিদা এবং জোগানে ভারসাম্য রক্ষা করে কোন্ মাধ্যম?

পরিবহণ।

পৃথিবীর যাবতীয় পরিবহণের মধ্যে কোন্ ধরনের পরিবহণ পথ সবচেয়ে বেশি?

সড়কপথ।

সীমান্ত সড়কপথগুলি তৈরি হয়েছে কেন?

সীমান্ত পাহারা দেওয়ার জন্য।

জাতীয় সড়ক নং 1 রাস্তাটি কোথা থেকে কতদূর বিস্তৃত?

নতুন দিল্লি থেকে পাঞ্জাবের আটারি শহর।

পৃথিবীর উচ্চতম সীমান্ত সড়ক কোনটি? এর উচ্চতা কত?

লেহ্ থেকে তিব্বত সীমান্ত। এর উচ্চতা 5639 মি।

ভারতের একটি শুল্কমুক্ত বন্দরের নাম লেখো |

গুজরাতের কান্ডালা।

মাধ্যমিক ভূগোল থেকে বুঝা যায় যে ভারত একটি বৃহৎ দেশ এবং এর অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও প্রগতি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এছাড়াও এই দেশের পরিবহন ও যোগাযোগ ব্যবস্থা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বিভিন্ন প্রকারের পরিবহন ব্যবস্থা সম্পর্কে প্রচুর তথ্য ও প্রযুক্তি উপযুক্ত উত্তর হিসাবে ব্যবহার করা যেতে পারে, যা দেশের উন্নয়ন এবং উন্নয়নের সাথে সম্পর্কিত সমস্যার সমাধানে সহায়তা করবে।

মাধ্যমিক ভূগোল পরীক্ষায় ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগের অধ্যায় থেকে গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন আসে। তাই এই অধ্যায়ের বিষয়বস্তু ভালোভাবে বুঝে নেওয়া এবং বিভিন্ন ধরনের প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার দক্ষতা অর্জন করা প্রয়োজন।

Rate this post


Join WhatsApp Channel For Free Study Meterial Join Now
Join Telegram Channel Free Study Meterial Join Now

মন্তব্য করুন